বিশ্ববাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ’র অভিষেক সম্পন্ন

প্রকাশিত: ৯:০৮ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৯, ২০২৩

বিশ্ববাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদ’র অভিষেক সম্পন্ন

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক এডভোকেট মিসবাহ উদ্দিন সিরাজ বলেছেন, সাহিত্যচর্চা শিক্ষার সর্বপ্রধান অঙ্গ। মানব মনের ওপরে সাহিত্যের প্রভাব শুধু অপরিহার্যই নয়, অনিবার্যও বটে। সাহিত্যচর্চা মানুষকে শুধু নীতিবান নয়, রুচিবানও করে। ভালো মানুষ তৈরিতে সাহিত্যচর্চার বিকল্প আর কিছু হতে পারে না।

তিনি আরো বলেন, বিশ্ববাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের অবদান সাহিত্যের মাইল ফলক স্পর্শ করবে। বিশ্বব্যাপি মানবতার সেবায় নিয়োজিত এই সংগঠন হবে মত, পথ, ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সকল লেখকের মিলন কেন্দ্র।

তিনি শুক্রবার (২৭ অক্টোবর) সন্ধ্যায় সিলেট জেলা পরিষদ হলরুমে বিশ্ববাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

বিশ্ববাংলা সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক পরিষদের সভাপতি রাহনামা শাব্বির চৌধুরী মনির সভাপতিত্বে ও সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাছুমা টফি একার সঞ্চালনায় অভিষেক অনুষ্ঠানে উদ্বোধকের বক্তব্য রাখেন সিলেট সিটি কর্পোরেশনের নবনির্বাচিত মেয়র আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী। এসময় তিনি বলেন, এই সংগঠনের আত্ম প্রকাশ ও কর্মকান্ডে আমি মুগ্ধ। দেশের সাহিত্য সাংস্কৃতির চর্চায় দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবার আহবান জানিয়ে বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে সরকার দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন। এই উন্নয়নকে সমৃদ্ধ করতে সাহিত্য সাংস্কৃতিক পরিষদের বিকল্প নেই। আমি এই সংগঠনের উত্তর উত্তর সফলতা কামনা করছি।

অনুষ্ঠানে আলোচকের বক্তব্য রাখেন অধ্যাপক ও শাবিপ্রবির বাংলা বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান ড. শরদিন্দু ভট্টাচার্য। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সিলেট বেতার এর উপ-পরিচালক মো. আব্দুল হক, সিলেট জেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ শাহ দিদার আলম চৌধুরী নবেল, ১৯, ৩০ ও ২১ নং ওয়ার্ডের মহিলা কাউন্সিলর নার্গিস সুলতানা রুমি, সিসিক কাউন্সিলর শেখ তোফায়েল আহমদ।
এসময় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন কবি সাংবাদিক আব্দুল মুকিত অপি, সাংবাদিক দিপু সিদ্দিকী, জাতীয় সাপ্তাহিক বাংলার মাটি পত্রিকার সম্পাদক আকলিছ আহমদ চৌধুরী, কবি ও নাট্যকার আনোয়ার হোসেন মিছবাহ, সেপুল, উপদেষ্টা গল্পকার সাংবাদিক সেলিম আউয়াল, বিনতা দেবী, কাউসার জাহান লিপি, উত্তম কুমার চৌধুরী, সহ-সভাপতি বিমলেন্দু পাল, ইশরাক জাহান জেলী, সেনুয়ারা আক্তার চিনু, মো. লোকমান হেকিম, সহ সাধারণ সম্পাদক রওশন আরা, বাশি খূঁৎহৈবম, সাংগঠনিক সম্পাদক দেওয়ান গাজী, আব্দুছ কুদ্দুছ শমশাদ, প্রচার সম্পাদক শুকরানা বেগম, কবি কামাল আহমদ, সাহিত্য সম্পাদক লুৎফুর রহমান তারেক, তথ্য প্রযুক্তি সম্পাদক মো. এনামুল ইসলাম তালুকদার, অর্থ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম লিটন, শিপুল আমিন চৌধুরী, ঋষিকেশ রায় শংকর, উপ প্রচার সম্পাদক কামাল আহমদ, আইন সম্পাদক শিপারা বেগম শিপা, সিনিয়র সদস্য ছয়ফুল আলম পারুল, সিনিয়র সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, সদস্য কয়েস আহমদ, সাহিত্য অনুরাগী মো. শাহজাহান, বিমান বিহারী, রুনা সুলতানা।
উপস্থিত ছিলেন ছড়াকার মঞ্জুর মোহাম্মদ, এ কে এম কামরুজ্জামান মাসুম, মো. আব্দুল হক, মকসুদ আহমদ লাল, মামুন সুলতান, সাংবাদিক মোহাম্মদ ঈসা, জুবের আহমদ সার্জন, কবি জালাল জয়, তাবিন্দ শাব্বীর চৌধুরী, সাবিক হোসেন, জারিন, ইয়াশাল খান, আইজেল খান, ফিরোজ আহমদ, বদরুল আমিন, জয়ন্ত গোস্বামী, সন্দীপন শুভ, শিল্পী দত্ত, নুরুল হক, সভাপতি সংগঠক রোহান, মাহমুদ হোসেন, ডাক্তার পিযুচন্দ্র দেবনাথ, কবি জুবায়দা বেগম আঁখি, রিনা, মো. আনোয়ার আলী, কবি আব্দুল কাদির জীবন, কুবাদ বক্ত চৌধুরী রুবেল, নারী উদ্যোক্তা সেলিনা চৌধুরী, মোহাম্মদ তোফায়েল আহমদ, কবি ও গীতিকার শাহ আলমগীর, মো. জহিরুল ইসলাম, সাংবাদিক কবি সংগঠক এমরান ফয়ছল, অধ্যাপক দিলওয়ার হোসেন বাবর, নেছারুল হক চৌধুরী বুস্তান, নাজমুন নাহার স্বপ্না, শেখ তোফায়েল আহমদ, রোকসানা বেগম, আবুল হাসনাত প্রমুখ।

এস এ

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ