গাজা ইস্যুতে পশ্চিমাদের অবস্থান ‘নির্লজ্জ দ্বিচারিতা’: জর্ডানের রানি

প্রকাশিত: ৬:৩২ পূর্বাহ্ণ, অক্টোবর ২৫, ২০২৩

গাজা ইস্যুতে পশ্চিমাদের অবস্থান ‘নির্লজ্জ দ্বিচারিতা’: জর্ডানের রানি

ফিলিস্তিনের অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি বাহিনী যে নির্বিচার বোমা হামলা চালাচ্ছে তাতে অসংখ্য বেসামরিক মানুষের প্রাণহানির বিষয়ে নিন্দা জানাতে ব্যর্থ হওয়ায় পশ্চিমা নেতাদের তীব্র সমালোচনা করেছেন জর্ডানের রানি রানিয়া আল আবদুল্লাহ। পশ্চিমা নেতাদের এই অবস্থানকে ‘নির্লজ্জ দ্বিচারিতা’ বলে মন্তব্য করেছেন তিনি।

মার্কিন প্রচারমাধ্যম সিএনএনের ক্রিশ্চিয়ান আমানপুরকে দেওয়া এক বিশেষ সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন জর্ডানের রানি। দেশটির রাজধানী আম্মান থেকে দেওয়া রানিয়ার সাক্ষাৎকারটি প্রচারিত হয় গতকাল মঙ্গলবার।

গাজায় চলমান বিপর্যয় নিয়ে বিশ্বের প্রতিক্রিয়া দেখে জর্ডানসহ পুরো মধ্যপ্রাচ্যের মানুষ হতবাক ও হতাশ উল্লেখ করে জর্ডানের রানি বলেন, ‘গত কয়েক সপ্তাহে আমরা বিশ্বে একটি নির্লজ্জ দ্বিচারিতা দেখেছি।’

সাক্ষাৎকারে রানিয়া বলেন, যখন ৭ অক্টোবর হামলার ঘটনা ঘটল, তখন বিশ্ব তাৎক্ষণিক ও দ্ব্যর্থহীনভাবে ইসরাইল ও তার আত্মরক্ষার অধিকারের পক্ষে দাঁড়াল। তারা হামলার নিন্দা জানাল। কিন্তু গত কয়েক সপ্তাহে গাজায় ইসরাইলি হামলার বিষয়ে বিশ্বে নীরবতা দেখা যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, দীর্ঘ দিনের শোষণ-বঞ্চনা, আল আকসা মসজিদের মর্যাদাহানি এবং ফিলিস্তিনিদের ওপর ইসরাইলি সেটলারদের (বসতি স্থাপনকারী) সাম্প্রতিক হামলার জবাবে গত ৭ অক্টোবর ইসরাইলে আকস্মিক হামলা চালায় ফিলিস্তিনের মুক্তিকামী সশস্ত্র সংগঠন হামাস। ওই হামলায় ১ হাজার ৪০০ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়। দুই শতাধিক ব্যক্তিকে ইসরাইল থেকে ধরে গাজায় নিয়ে যায় হামাস।

এর জবাবে ওই দিন থেকেই গাজায় নির্বিচার বোমা হামলা চালিয়ে আসছে ইসরাইল। ইসরাইলি সামরিক বাহিনীর নির্বিচার হামলায় এখন পর্যন্ত ৫ হাজার ৭০০ জনের বেশি ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে দুই হাজারের বেশি শিশু। ধ্বংসস্তূপে পরিণত হওয়া অবরুদ্ধ গাজায় দেখা দিয়েছে চরম মানবিক বিপর্যয়।

এ প্রসঙ্গে জর্ডানের রানি রানিয়া বলেছেন, আধুনিক ইতিহাসে এমন মানবিক দুর্ভোগ এই প্রথম দেখা যাচ্ছে। অথচ যুদ্ধবিরতির আহ্বান পর্যন্ত জানাচ্ছে না বিশ্ব।

সাক্ষাৎকারে জর্ডানের রানি গাজায় বেসামরিক মানুষের প্রাণহানির নিন্দা না করা এবং যুদ্ধবিরতির আহ্বান না জানানোয় পশ্চিমা বিশ্বের সমালোচনাও করেন।

এস এ