সুনামগঞ্জে বন্যার স্রোতে ভেসে ২ শিশুসহ মা নিখোঁজ

প্রকাশিত: ৭:০৫ পূর্বাহ্ণ, জুন ২০, ২০২৩

সুনামগঞ্জে বন্যার স্রোতে ভেসে ২ শিশুসহ মা নিখোঁজ

সুনামগঞ্জের শাল্লায় বন্যার পানির স্রোতে ভেসে দুই শিশু সন্তানসহ নিখোঁজ রয়েছেন এক মা। সোমবার রাত ৮টার দিকে শাল্লা সদর এলাকায় এ ঘটনাটি ঘটে।

নিখোঁজরা হলেন- শাল্লা উপজেলার হবিবপুর ইউনিয়নের বিলপুর গ্রামের রথীন্দ্র দাসের স্ত্রী দূর্লভ রানী দাস (৩০), তার মেয়ে জবা রাণী দাস (৭) ও ছেলে বিজয় দাস (৫)।

জানা যায়, রাতভর অনেক খোঁজাখুঁজির পর তাদের কাউকে পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে তিনজনই পানিতে ডুবে মারা গেছে।

শাল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম জানিয়েছেন, মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার পর সুনামগঞ্জের ডুবুরি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছেছে, আমরা উদ্ধার তৎপরতা শুরু করেছি। দুপুর পর্যন্ত নিখোঁজদের সন্ধান পাওয়া যায়নি।

থানা পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীদের সাথে কথা বলে জানা যায়, সোমবার রাত ৮টায় তারা শাল্লা সদরে যাওয়ার জন্য বাহাড়া রাস্তা দিয়ে আসছিলেন। এ সময় শাল্লা সেতুতে উঠার আগে নিচু পাকা রাস্তাটি বন্যার পানিতে ডুবে বাহাড়া রাস্তায় প্রবল স্রোতের তৈরি হয়। রাস্তা পারাপারের সময় একে একে তিনজনই স্রোতের ধাক্কায় ভেসে নিখোঁজ হয়।

ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার সাথে সাথে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবু তালেব, শাল্লা থানার অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট দিপু রঞ্জন দাশ, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ ও স্বেচ্ছাসেবীরা ঘটনাস্থলে আসেন। তারা রাতভর নিখোঁজ তিনজনকে উদ্ধারের চেষ্টা করেন। এদিকে রাত ১২টা পর্যন্ত নিখোঁজ তিনজনের পরিচয় শনাক্ত করা যায়নি। রাত ১২টার পরে জানা যায় নিখোঁজ তিনজন হলেন- বিল পুর গ্রামের রথীন্দ্র দাসের স্ত্রী ও সন্তান।

প্রশাসনের কাছে নিজের স্ত্রী-সন্তানদের নিখোঁজ হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে রথীন্দ্র দাস জানান, তিনি অন্য এলাকায় একটি শ্রাদ্ধ অনুষ্ঠানে আতিথেয়তার কাজে ব্যস্ত ছিলেন। রাতে বাড়িতে ফিরে তার স্ত্রী-সন্তানদের দেখতে পাননি। পরে লোকমুখে জানতে পারেন, শাল্লা সদরে যাওয়ার সময় দুই সন্তানসহ তার স্ত্রী স্রোতের সাথে ভেসে গেছেন। এরপর তিনি ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন।

শাল্লা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আমিনুল ইসলাম সকাল সাড়ে ১১টায় নয়া দিগন্তকে জানান, রাতেই ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি দলকে খবর দেয়া হয়েছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে সুনামগঞ্জের ডুবুরি দল সকাল সাড়ে ১০টায় ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর পরই উদ্ধার তৎপরতা চালানো হয়েছে।

শাল্লা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবু তালেব বলেন, মঙ্গলবার সুনামগঞ্জের ডুবুরি দল নিয়ে আমরা উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রেখেছি।

এস এ