আমার বড় শক্তি, ভোটার তারাই আমার ভরসা: নজরুল ইসলাম বাবুল

প্রকাশিত: ৩:৩৮ অপরাহ্ণ, জুন ১৯, ২০২৩

আমার বড় শক্তি, ভোটার তারাই আমার ভরসা: নজরুল ইসলাম বাবুল

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী মো. নজরুল ইসলাম বাবুল বলেছেন, ‘আমার বড় শক্তি আমার ভোটাররা। আমি বিশ্বাস করি সব ষড়যন্ত্র, রক্তচক্ষু উপেক্ষা তারা তাদের আমানত রক্ষা করবেন। সিলেটের মানুষ অতীতেও ভুল করেনি আগামীকালও করবে না। লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিয়ে তারা সব অপকর্ম, অপপ্রচার, অন্যায়-অবিচারের সমুচিত জবাব দেবেন।

গতকাল সোমবার রাতে নগরের রিকাবীবাজারে পয়েন্টে সর্বশেষ নির্বাচনী সভায় তিনি এসব কথা বলেন।

নজরুল ইসলাম বাবুল বলেন, সরকার দলীয় নৌকার প্রার্থী নির্লজ্জভাবে প্রশাসনকে ব্যবহার করছেন।নির্বাচনী আইনকে তোয়াক্কা করছেন না। ভোটের দিন জনগণের রায়কে ছিনিয়ে নেওয়ার জন্য সন্ত্রাসীদের জড়ো করছেন। নির্বাচন কমিশন সবকিছু দেখেও নীরব ভূমিকা পালন করছে। পুরো প্রশাসন তাকে জয়ী করাতে উঠে পড়ে লেগেছে। এ অবস্থায় ভোটাররাই পারেন এই সব ষড়যন্ত্র ও অন্যায়ের সঠিক জবাব দিতে।

জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী বাবুল বলেন, ‘নগরবাসী দেখেছেন নির্বাচনী প্রচার শুরু হওয়ার পর থেকে আমি স্থানীয় নেতাকর্মীদের নিয়েই আমার প্রচার কাজ চালিয়েছি। কেন্দ্র থেকে আমার দলের কোনো নেতাকে নিয়ে আসিনি। কারণ একটাই, আমি মনে করি এই নগরের মানুষই বিচার-বিশ্লেষণ করে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচিত করবেন। তারা কোনো নেতার কথায় ভোট দেবেন না। অন্যদিকে সরকারদলীয় প্রভাবশালী নেতারা দিনরাত সিলেট অবস্থান করে প্রশাসনকে প্রভাবিত করছেন। আমি বিশ্বাস করি ভোটের দিন ভোটাররা তাদের বিচক্ষণ সিদ্ধান্তের মাধ্যমে এর জবাব দেবেন।

তিনি বলেন, নগরবাসী জানেন আমাদের সব শেষ নির্বাচনী সভা কোর্ট পয়েন্ট এলাকায় করার ঘোষণা দিয়েছিলাম। কিন্তু প্রশাসন আমাদেরকে সেখানে সভা করতে দেয়নি। বাধ্য হয়ে আমরা অন্যস্থানে করতে হচ্ছে। এর বিচারের ভার আমি নগরবাসীর কাছে ছেড়ে দিলাম।

নজরুল ইসলাম বাবুল আরও বলেন, ‘আমি মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিতে চাই না। যা করতে পারব না কিংবা যেটা আমার আওতায়ই নেই সেটির প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচনী বৈতরণী পার হতে চাই না। আমি কি করতে পারব বা কি করতে চাই তা আমার নির্বাচনী ইশতেহারে তুলে ধরেছি। নগরবাসী সেটা দেখেছেন। অথচ আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী অহরহ এমন প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভোটারদের মন জয় করার অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। আমি বিশ্বাস করি সম্মানিত ভোটাররা এসব বিবেচনা করেই তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।’

ভোটারদের প্রতি বাবুল বলেন, ‘আপনারা সবাই ভোট কেন্দ্রে যাবেন। আমার কথায় নয়, যাকে আপনার বিবেচনায় যোগ্য মনে হয় তাকেই ভোট দেবেন। কিন্তু একটা বিষয় সজাগ থাকবেন কেউ যেন আপনার ভোট কারচুপি করতে না পারে। প্রশাসন সরকারি দলের প্রার্থীর পক্ষে। আমার পক্ষে আমার জনগণ। প্রত্যেক ভোটার আমার এজেন্ট, আমার প্রতিনিধি এবং আমার ভোটের রক্ষক।’

ভোটের দিন নিরপেক্ষ ও যথাযথ ভূমিকা পালনের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘জনগণের ভোট নিয়ে ছিনিমিনি খেলবেন না। যদি অন্যায়ভাবে কিছু করেন তা হলে এর ফল ভালো হবে না। সিলেট আধ্যাত্নিক নগরী। শাহজালালের মাটি। এখানে অন্যায় করে কেউ কোনোদিন পার পায়নি। সুতরাং সবাই সতর্ক থাকবেন।’

নগরবাসীর কাছে লাঙ্গল প্রতীকে ভোট চেয়ে বাবুল বলেন, ‘আপনারা আমার ওপর বিশ্বাস রাখবেন, আমি যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তা আমার শরীরে শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত অক্ষরে অক্ষরে পালন করব।’

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ সিদ্দিকীর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন দলের চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা মনিরুল ইসলাম মিলন। তিনি তাঁর বক্তব্যে মেয়র পদে নজরুল ইসলাম বাবুলকে লাঙ্গল মার্কায় ভোট দিয়ে জয়ী করার জন্য সিলেটবাসীর প্রতি আকুল আহ্বান জানান। তিনি বলেন, অতীতে এই সিলেটবাসী লাঙ্গলের দুঃসময়েও জাতীয় পার্টির পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। এবারও তারা দাঁড়াবেন এবং সব অন্যায়ের দাতভাঙ্গা জবাব দেবেন।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা সদস্য সচিব সাইফুদ্দিন খালেদ, কেন্দ্রীয় তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জহিরুল ইসলাম মিন্টু, সিলেট মহানগর জাতীয় পার্টির সদস্য সচিব আব্দুস শহীদ লস্কর বশির, প্রবাসী ব্যবসায়ী নেতা হীরা মিয়া, জাপা নেতা সুফিয়ান খান, সেবুল আহমদ, আবুল কালাম তাপাদার, মর্তুজা আহমদ প্রমুখ।

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ