ঝড়ের রাতে জন্ম, নবজাতকের নাম রাখা হলো ‘মোখা’

প্রকাশিত: ৭:২৯ পূর্বাহ্ণ, মে ১৫, ২০২৩

ঝড়ের রাতে জন্ম, নবজাতকের নাম রাখা হলো ‘মোখা’

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘মোখা’র নামানুসারে কক্সবাজারে এক নবজাতকের নাম রাখা হয়েছে ‘মোখা’।
মোখার তাণ্ডব চলাকালীন শনিবার (১৪ মে) রাতে জেলার পেকুয়া উপজেলার একটি আশ্রয়কেন্দ্রে প্রসববেদনা ওঠে জয়নব বেগম নামে এক প্রসূতির।

ঝড়ের রাতেই ওই মুহূর্তে পেকুয়া থানার ওসি ওমর হায়দার ছুটে এসে প্রসূতিকে পুলিশের গাড়িতে করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান।

গতকাল রোববার (১৫ মে) ভোর সাড়ে চারটার দিকে একটি ছেলেসন্তানের জন্ম দেন ওই প্রসূতি।

এসব তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন পেকুয়া থানার ওসি ওমর হায়দার নিজেই।

তিনি গণমাধ্যমকে জানান, রাতে খবর পান রাজখালী এয়ার আলী খান আদর্শ উচ্চবিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে এক নারী প্রসব বেদনায় কাতরাচ্ছেন। রাত দেড়টায় সেখানে গাড়ি পাওয়া যাবে না। তাই গাড়ি নিয়ে সেখানে পৌঁছে ওই নারীকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন। ভোররাত সাড়ে চারটার দিকে ওই নারী সন্তান জন্ম দেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা মুজিবুর রহমান জানিয়েছেন, ওই নারীর নরমাল ডেলিভারি হয়েছে। মা ও ছেলে সুস্থ আছে।

বঙ্গোপসাগরে ঘূর্ণিঝড়টির সময় জন্ম নেওয়ায় ডাকনাম ‘মোখা’ রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নবজাতকের বাবা মোহাম্মদ আরকান।

তিনি বলেন, ‘ছেলে ও স্ত্রীকে হাসপাতাল ছেড়ে আশ্রয়কেন্দ্রে ফিরে এসেছি। ঘূর্ণিঝড় মোখার নামানুসারে আমার ছেলের ডাকনাম “মোখা” রাখা হয়েছে। কেন্দ্রের সবাই মোখাকে দেখতে আসছে। ওসি আশ্রয়কেন্দ্রে থাকা সবাইকে মিষ্টি খাইয়েছেন। ছেলের জন্য কাপড় নিয়ে এসেছেন তিনি। আমরা খুবই খুশি। ’

‘মোখা’র মা জয়নব ওসি মোহাম্মদ ওমর হায়দারকে কৃতজ্ঞতা জানাতে ভোলেননি। তিনি বলেন, ‘ওসি স্যারকে ধন্যবাদ জানাই। স্যার না থাকলে আমার কী অবস্থা হতো, জানি না। ’

স্বামী আরকানের সঙ্গে জয়নব পেকুয়া উপজেলার রাজাখালী ইউনিয়নের বামুলাপাড়ায় থাকেন। ঝড়ের প্রভাব শুরু হওয়ার পর শনিবার রাত ৯টার দিকে তিনি পরিবারের সঙ্গে রাজাখালী এয়ার আলী খান আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় আশ্রয়কেন্দ্রে যান।